প্রকাশ্যে সাংবাদিক পেটালেন সার্জেন্ট

0
13

রাজধানীর মত্স্য ভবন এলাকায় দৈনিক মানবজমিনের ফটোসাংবাদিক মো. নাসির উদ্দিনকে নির্যাতনের ঘটনায় ট্রাফিক পুলিশের সার্জেন্ট মো. মুস্তাইনকে ক্লোজ করা হয়েছে। গতকাল সন্ধ্যায় তাকে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ট্রাফিক বিভাগের ডিসি অফিসে স্থানান্তর করা হয়।

পুলিশ সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। প্রত্যক্ষদর্শী ও নির্যাতনের শিকার সাংবাদিক সূত্রে জানা গেছে, গতকাল বিকাল সোয়া ৪টার দিকে প্রেস ক্লাব থেকে কারওয়ান বাজারে দৈনিক মানবজমিনের কার্যালয়ে রওনা দেন ফটোসাংবাদিক নাসির উদ্দিন। এ সময় মুস্তাইন নাসির উদ্দিনের বহনকারী মোটরসাইকেলকে সিগনাল দিয়ে থামান মত্স্য ভবন মোড়ে দায়িত্বরত ঢাকা মহানগর ট্রাফিক দক্ষিণ বিভাগের সার্জেন্ট। মোটরসাইকেলে দৈনিক জনকণ্ঠের সাংবাদিক জীবন ঘোষও ছিলেন। এ সময় মুস্তাইন মোটরসাইকেলের নথিপত্র দেখতে চান। নাসির উদ্দিন মোটরসাইকেলের নথিপত্র এবং তার ব্যক্তিগত ড্রাইভিং লাইসেন্স দেখান। তখন তিনি নাসিরের কাছে জানতে চান, তার হেলমেট কোথায়? নাসির বলেন, তিন দিন আগে তার হেলমেটটি প্রেস ক্লাব থেকে চুরি হয়ে গেছে। দুই দিন পরই তিনি হেলমেট কিনবেন। শত কাকুতি-মিনতি সত্ত্বেও কর্তব্যরত সার্জেন্ট তার নামে মামলা রুজু করেন। এ সময় তিনি সাংবাদিকদের নামে কুৎসা করতে থাকেন। কুৎসার তীব্র প্রতিবাদ জানান নাসির। তখন নাসিরকে সার্জেন্ট মুস্তাইন শারীরিকভাবে আঘাত করেন। তার শার্টের কলার ধরে মত্স্য ভবনের পুলিশ বক্সে নিয়ে যান এবং সেখানে বসিয়ে রাখেন সার্জেন্ট মুস্তাইন। কোথাও যাতে ফোন দিতে না পারেন এ জন্য নাসিরের ফোনটিও ছিনিয়ে নেন তিনি। পরে খবর পেয়ে নাসির উদ্দিনের সহকর্মীরা ঘটনাস্থলে  গিয়ে তাকে উদ্ধার করেন।

এ বিষয়ে  ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ট্রাফিক বিভাগের এসি মো. হারুন বলেন, ‘বিষয়টি আমরা জেনেছি। সব তথ্যপ্রমাণ সাপেক্ষে সার্জেন্ট মুস্তাইনকে ক্লোজ করা হয়েছে। ’

Facebook Comments