শোকাবহ আগস্টে ছাত্রলীগের নানা কর্মসূচি

0
169

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪২তম শাহাদৎবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস এবং ২১ আগস্ট শেখ হাসিনাকে হত্যার অপচেষ্টায় বর্বরোচিত গ্রেনেড হামলার ১৩ম বার্ষিকী উপলক্ষে সারাদেশে মাসব্যাপী কর্মসূচি গ্রহণ করেছে ছাত্রলীগ।

ছাত্রলীগের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, শোকাবহ আগস্টের কর্মসূচির মধ্য রয়েছে ১ আগস্ট প্রথম প্রহর ১২টা ১ মিনিটে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে আলোক শিখা প্রজ্জ্বলন ও শপথ গ্রহণ। সকাল ৬ টায় কেন্দ্রীয় কার্যালয়সহ সারাদেশে প্রত্যেকটি কার্যালয়ে সংগঠনের পতাকা অর্ধনমিতকরণ ও কালো পতাকা উত্তোলন।

৪ আগস্ট বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জ্যেষ্ঠ পুত্র শেখ কামালের ৬৮তম জন্মদিন উপলক্ষে আলোচনা সভা। ৫ আগস্ট সকাল ৮ টায় ধানমন্ডিস্থ আবাহনী ক্লাব প্রাঙ্গণে ও সকাল ৯ টায় বনানী কবরস্থানে চিরনিদ্রায় শায়িত শহীদ শেখ কামালের সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন।

৬ আগস্ট জাতির পিতার পলাতক খুনীদের দ্রুত দেশে ফিরিয়ে আনার দাবীতে মানববন্ধন শেষে সকল বিশ্ববিদ্যালয় শাখা স্ব-স্ব বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, সকল জেলা শাখা স্ব স্ব জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে ও সকল উপজেলা শাখা স্ব-স্ব উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে পররাষ্ট্র মন্ত্রাণালয় বরাবর স্মারকলিপি পেশ।

৮ আগস্ট বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে সকাল সাড়ে ৮ টায় বনানী কবরস্থানে তার কবরে শ্রদ্ধার্ঘ্য অর্পণ। ১৪ আগস্ট ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের শহীদদের স্মরণে রক্তদান কর্মসূচি পালন।

১৫ আগস্ট সংগঠনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়সহ সারাদেশে সকল দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা অর্ধনমিতকরণ ও কালো পতাকা উত্তোলন, কালো ব্যাচ ধারণ, বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন ও দুঃস্থদের মাঝে খাবার বিতরণ।

এছাড়াও ১৫ থেকে ২০ আগস্ট ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের শহীদদের স্মরণে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টি এস সিতে আলোকচিত্র প্রদর্শনী। ১৬ আগস্ট বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় যোগদান।

১৭ আগস্ট (২০০৫ সালে) দেশের ৬৩ টি জেলায় প্রায় ৫ শতাধিক স্থানে একযোগে সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে দেশব্যাপী ছাত্রলীগ সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ বিরোধী দিবস হিসেবে পালন ও দেশব্যাপী বিক্ষোভ মিছিল করবে।

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা দিবস উপলক্ষে বিকাল ৪ টায় বঙ্গবন্ধু এভিনিউস্থ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে নিহতদের বেধীতে শ্রদ্ধা নিবেদন। ২৩ আগস্ট ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় নিহতদের স্মরণে আলোচনা সভা।

২৪ আগস্ট শহীদ আইভী রহমানের ১৩তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে সকাল সাড়ে ৮ টায় বনানী কবরস্থানে মরহুমার কবরে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন। ২৬ আগস্ট ২১ আগস্ট স্মরণে সাংগঠনিক জেলাসমূহে আলোচনা সভা। ২৭ আগস্ট ২১আগস্ট স্মরণে সাংগঠনিক থানাসমূহে আলোচনা সভা। ৩১ আগস্ট জাতির পিতা ও বঙ্গমাতার স্মরনে আলোচনা সভা।

ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন সারাদেশের সকল বিশ্ববিদ্যালয়, জেলা, মহানগর, উপজেলা, হল, কলেজ, থানা, পৌরসভা শাখাকে শোকাবহ আগস্ট উপলক্ষে আলোচনা সভা, চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগীতা, দুঃস্থদের মাঝে খাবার বিতরণ, স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচি, দোয়া ও মিলাদ মাহফিল আয়োজন করার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন।

মাসব্যাপী এই কর্মসূচী বিষয়ে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন জনকণ্ঠকে বলেন, আমরা চাই এসব কর্মসূচির মধ্য দিয়ে বঙ্গবন্ধুর জীবন আদর্শ সকলের মধ্যে বিশেষ করে এই প্রজন্ম আরো ভালোভাবে যাতে বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে জানতে পারে তা ছড়িয়ে দিতে। আমরা ১৫ থেকে ২০ আগস্ট ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের শহীদদের স্মরণে টি এস সিতে আলোকচিত্র প্রদর্শনী করবো সেখানে নানা বিষয় ফুটিয়ে তোলা হবে যাবে অনেক বিষয় সম্পর্কে এই প্রজন্ম জানতে পারবে। কর্মসূচি সফল করতে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের দিক নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে বলেও জানান এস এম জাকির হোসাইন।

সারাদেশের মাসব্যাপী শোকাবহ আগস্টের কর্মসূচি নিয়ে ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ জনকণ্ঠকে বলেন, আমরা কেন্দ্রীয় সংসদ, জেলা, উপজেলা, ইউনিয়ন এমনকি ওয়ার্ড পর্যায়েও এই কর্মসূচি করতে নির্দেশনা দিয়েছি। যাতে প্রতন্ত অঞ্চলের মানুষটিও জানতে পারে বঙ্গবন্ধুর জীবন আদর্শ। এর মধ্য দিয়ে নতুন প্রজন্ম বঙ্গবন্ধু বিষয়ে আরো ভালো জানতে পারে। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ছড়িয়ে দিতেই এমন বড় উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।

উল্লেখ্য, সারাবছর নানা কর্মসূচি পালন করলেও শোকের মাসটিকে একটু বেশিই গুরুত্ব দেন ভাতৃপ্রতিম সংগঠন ছাত্রলীগসহ আওয়ামী লীগের অন্যান্য সংগঠনও।

Facebook Comments