‘সফরটি একান্তই খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত ও চিকিৎসার জন্য’

0
215

শনিবার লন্ডন সফরে গেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। এর আগে ২০১৫ সালে ১৬ সেপ্টেম্বর চিকিৎসার জন্য লন্ডনে গিয়ে বড় ছেলে তারেক রহমান ও তার পরিবারের সঙ্গে প্রায় দুই মাস কাটানোর পর দেশে ফিরেন তিনি। তবে এবার তিনি সেখানে কতদিন থাকবেন সেটা এখনো স্থির হয়নি।

কয়েক সপ্তাহ ধরেই তার এই লন্ডন সফরের সম্ভাবনা এবং গুরুত্ব নিয়ে দেশের রাজনৈতিক মহলে বেশ আলোচনা চলে আসছিল। বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান ও খালেদা জিয়ার বড় ছেলে তারেক রহমান বেশ কয়েক বছর ধরে লন্ডনে অবস্থান করছেন। সেখান থেকে বিএনপির রাজনীতিতে তিনি যথেষ্ট ভূমিকা পালন করেন বলেও শোনা যায়।

ফলে চেয়ারপারসনের সাথে তার এই সাক্ষাৎ যে শুধু মা ছেলের সাক্ষাৎ হবে না, বরঞ্চ দলের ভবিষ্যৎ নীতিনির্ধারণের ক্ষেত্রে দুই শীর্ষস্থানীয় নেতার শলাপরামর্শেরও ক্ষেত্র তৈরি করবে, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।

যদিও দলের শীর্ষ নেতারা বলছেন, সফরটি একান্তই খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত ও চিকিৎসার জন্য। এরপরও দেশের সব কিছু দাবিয়ে বারবার আলোচনায় আসছে খালেদা জিয়ার সফরটি। অনেকের মতে, সেখান থেকে ফিরেই সহায়ক সরকারের রূপরেখা ঘোষণা করবেন তিনি৷ এছাড়াও রাজনীতিতে নানা পরিবর্তন আনতে পারেন। ফলে তার এই সফর ঘিরে রাজনৈতিক মহলে অন্যরকম একটা আগ্রহ তৈরি হয়েছে বলেই বুঝা যাচ্ছে৷ খালেদা জিয়ার এই সফরকে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ, দেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষক ও সুশীল সমাজও।

এছাড়া যেহেতু সেখানে তারেক রহমানের সাথে খালেদা জিয়ার দেখা হবে ফলে সাংগঠনিক অনেক ব্যাপারেই তাদের শলা-পরামর্শ হবে, যেটাকে বিএনপির রাজনীতিতে খুব গুরুত্ব বহন করবে বলে মনে করা হচ্ছে।

Facebook Comments