ফেসবুক থেকে আর্তমানবতার সেবায়

0
759
রাকিব হাসান: ২০১৬ সালের মাঝামাঝিতে শুরু হয় হার্টবিট গ্রুপের অগ্রযাত্রা। ফেসবুকের জনপ্রিয় এই গ্রুপটির প্রতিষ্ঠাতা রিলি হোসেন। মাত্র কয়েকজন মেম্বার্স নিয়ে শুরু হলেও প্রতিষ্ঠাতা এডমিন রিলি হোসেনের ঐকান্তিক প্রচেষ্টা আর অক্লান্ত পরিশ্রমের ফলে আজ গ্রুপটির রয়েছে প্রায় ২৫ হাজার একটিভ মেম্বার্স। রিলি হোসেন ছাড়াও গ্রুপটিতে আরো কয়েকজন এডমিন ও মডারেটর জুবায়ের, ইসমাইল দিবা,ফখরুল, রাহাত, সালমা ও সোহানা রয়েছে। যদিও প্রথমে গ্রুপটির উদ্দেশ্য ছিল শুধু আড্ডাবাজি করার কিন্তু পরে রিলি হোসেনের পরামর্শে এটি মানবকল্যানে রুপ নেয়।অন্যান্য এডমিন ও মেম্বার্সদের সাথে আলোচনা করেন যে ” আমরা সবাই মিলে আর্থিক সাহায্য দিয়ে দুঃস্থ ও সুবিধাবঞ্চিত মানুষের পাশে দাড়াতে পারি”। যেই কথা সেই কাজ। এতে গ্রুপের সকল সদস্য স্বতস্ফুর্তভাবে অংশগ্রহণ করেন। শুরু হয় টাকা সংগ্রহের কাজ। মাত্র কয়েক দিনের ব্যবধানে প্রায় ৫৫০০০ টাকা সংগ্রহীত হয়।

গ্রুপের অন্যতম তিনজন এডমিন জুবায়ের,রাহাত এবং ইসমাইলের ব্যবস্থাপনায় আরো দুজন সদস্য দুঃখবিলাস ও মেহেদী হাসান কে নিয়ে হার্টবিট টিম পৌছে যায় পার্বত্য চট্টগ্রামের রাঙামাটিতে অবস্থিত দারুল উলুম হাফেজিয়া নূরানি মাদরাসা ও এতিমখানাতে। সেখানে তারা এতিম বাচ্চাদের সাথে সময় কাটান এবং বাচ্চাদের খাবার খাওয়ান। খাবার বাবদ ব্যক্তিগত ভাবে টাকা প্রদান করেন গ্রুপের অন্যতম একটিভ মেম্বার মেহেদী হাসান । সর্বশেষ মাদরাসা কর্তৃপক্ষের নিকট হার্টবিট গ্রুপ নগদ ৫৫ হাজার টাকা তুলে দেন।

এ প্রসঙ্গে হার্টবিটের প্রতিষ্ঠাতা এডমিন রিলি মুক্ত সংবাদকে বলেন, “আমার অনেক দিনের ইচ্ছা ছিল মানবকল্যাণে কাজ করার। হার্টবিট গ্রুপের মাধ্যমে সেটা সম্ভব হয়েছে। আমার সব মেম্বার্সরা এতো ভালো রেসপন্স করেছে যা খুবই প্রশংসনীয়” এছাড়া রিলি আরো জানান যে, ভবিৎষতে হার্টবিট গ্রুপ আরো বেশি অর্থ ও জনবল নিয়ে আর্তমানবতার পাশে দাড়াবে। এজন্য তিনি সবার দোয়া ও সহযোগীতা কামনা করেন।
মিডিয়া পার্টনার :মুক্ত সংবাদ ডট কম
Facebook Comments