ধোনির সময় ফুরিয়ে আসছে : অমরনাথ

0
985
মহেন্দ্র সিং ধনি

কেবল সাফল্যই পারে সমালোচকদের মুখে কুলুপ এঁটে দিতে। মহিন্দর অমরনাথ কয়েক বছর ধরেই মহেন্দ্র সিং ধোনির কড়া সমালোচক। বছর তিনেক আগে প্রধান নির্বাচক থাকার সময় ধোনিকে টেস্ট দলের অধিনায়কত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়ার তৎপরতা চালিয়ে চাকরি হারিয়েছিলেন। এখন ধোনির বাজে সময়ে ছাড়বেন কেন! টাইমস অব ইন্ডিয়ায় লেখা কলামে অমরনাথ ধোনির সময় ফুরিয়ে আসছে বলে মন্তব্য করেছেন। বলেছেন, এটাই সময় বিরাট কোহলিকে টেস্টের পাশাপাশি ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টির অধিনায়কত্বও দেওয়ার।

১৯৮৩ সালের বিশ্বকাপজয়ী ভারতীয় দলের অন্যতম সদস্য অমরনাথ ধোনিকে ‘রক্ষণাত্মক অধিনায়ক’ আখ্যা দিয়ে লিখেছেন, ‘ধোনি এমনই একজন রক্ষণাত্মক অধিনায়ক যে প্রতিপক্ষকে সব সময় ঘুরে দাঁড়ানোর সুযোগ করে দেয়।’ ভারতকে টি-টোয়েন্টি ও ওয়ানডে বিশ্বকাপ জেতানোর পরও ধোনির অধিনায়কত্বের রেকর্ড অমরনাথের চোখে ‘খুব বড় কিছু নয়’। লিখেছেন, ‘ভারতের অন্যান্য অধিনায়কের মতো ধোনিরও দেশের মাটিতে রেকর্ড ভালো। এ আর এমন কী!’

অমরনাথ মনে করেন, ভারতীয় ক্রিকেটের নতুন দিন আনার সময় এসে গেছে। আর এই নতুন দিনের নতুন কান্ডারি হবেন কোহলি। লিখেছেন, ‘সাম্প্রতিক সিরিজগুলোতে দেখা যাচ্ছে, যেদিন কোহলি ভালো করে, সেদিন ভারতীয় দলও ম্যাচ জেতে। ভারতীয় ক্রিকেটের পরবর্তী ধারা কোহলিকে কেন্দ্র করেই।’

২০১১-১২ মৌসুমে অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ড থেকে টানা আট টেস্ট হেরে ফেরার পর ধোনিকে টেস্ট অধিনায়কত্ব থেকে সরিয়ে দিতে চেয়েছিলেন তখনকার প্রধান নির্বাচক অমরনাথ। কিন্তু ধোনির ওপর ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের সে সময়ের প্রধান এন শ্রীনিবাসনের আশীর্বাদ থাকায় উল্টো অমরনাথকেই প্রধান নির্বাচকের পদ থেকে পদত্যাগ করতে হয়েছিল। সেই অমরনাথ আবারও নাকি আবারও প্রধান নির্বাচক পদে বসতে যাচ্ছেন। আগামী মাসের শুরুতে বিসিসিআইয়ের বার্ষিক সাধারণ সভাতে এ ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আসতে পারে বলে জানা গেছে।

ঘটনা সত্যি হলে ছোট ফরম্যাটেও যে ধোনির অধিনায়কত্ব হুমকির মুখে পড়তে যাচ্ছে, এ কথা বলে দেওয়াই যায়। সময়টা আসলেই খারাপ যাচ্ছে ‘ক্যাপ্টেন কুলে’র!

Facebook Comments