মেট্রোরেলের রুট বদলানোর দাবিতে ঢাবিতে মানববন্ধন

0
333
‘মেট্রোরেলের রুট বদলাও, ঢাকা বিশ্বদ্যিালয় বাঁচাও’ স্লোগানে আয়োজিত মানববন্ধনে বিশ্ববিদ্যালয়ের সহস্রাধিক শিক্ষার্থী অংশ নেন

যানজটের কবল থেকে ঢাকাবাসীকে উদ্ধারে সরকার যে মেট্রোরেল প্রকল্প হাতে নিয়েছে, তাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় উল্টো যানজট বৃদ্ধির আশঙ্কা করছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। একইসঙ্গে ওই প্রকল্পের ফলে ক্যাম্পাসের নিরাপত্তা বিঘ্নিত হবে, শব্দদূষণ ও সৌন্দর্য নষ্ট হবে- এমন আশঙ্কা করে ওই প্রকল্পের রুট বদলানোর দাবিতে মানববন্ধন করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকালে বিশ্বদ্যিালয়ের ছাত্রশিক্ষক কেন্দ্র (টিএসসি) সংলগ্ন রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে ‘মেট্রোরেলের রুট বদলাও, ঢাকা বিশ্বদ্যিালয় বাঁচাও’ স্লোগানে আয়োজিত মানববন্ধনে বিশ্ববিদ্যালয়ের সহস্রাধিক শিক্ষার্থী অংশ নেন।

মানববন্ধন থেকে বলা হয়, ক্যাম্পাসের দোয়েল চত্ত্বরে মেট্রোরেলের স্টপেজ রাখা হয়েছে। এতে কার্জন হল এলাকায় অতিরিক্ত ‘জটলা’ সৃষ্টি করবে। প্রায় একশ মিটার গতিবেগে ছুটে চলা ট্রেনের শব্দের কারণে মাত্রাতিরিক্ত শব্দদূষণের কবলে পড়বে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। এর ফলে বহিরাগতদের আনাগোনা বাড়বে, ক্যাম্পাসের নিরাপত্তা বিঘ্নিত হবে।

তারা আরো বলেন, মেট্রোরেলের পিলারগুলো রাস্তার মাঝখান দিয়ে যাবে। সেহেতু রাস্তা সম্প্রসারণের প্রয়োজন পড়বে। ফলে এর পাশে অবস্থিত গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনাগুলো ভাঙতে হবে।

মানববন্ধন শেষে শিক্ষার্থীরা একটি মিছিল বের করেন।

২০ দশমিক এক কিলোমিটার বিস্তৃত মেট্রোরেল প্রকল্পের জন্য স্টেশন থাকবে ১৬টি। এগুলো হলো- উত্তরা (উত্তর), উত্তরা (সেন্টার), উত্তরা (দক্ষিণ), পল্লবী, মিরপুর ১১, মিরপুর-১০ নম্বর, কাজীপাড়া, তালতলা, আগারগাঁও, বিজয় সরণি, ফার্মগেইট, সোনারগাঁও, জাতীয় জাদুঘর, দোয়েল চত্বর, জাতীয় স্টেডিয়াম এবং বাংলাদেশ ব্যাংক এলাকায়।

২০১৯ সালে প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

Facebook Comments